শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৩০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
Logo চিরিরবন্দরে ফজলুর রহমান স্মৃতি পাঠাগার এর নির্বাহী কমিটির আগামী রোববার আলোচনা সভা। Logo গাজীপুরে ডাকাতির প্রস্ততিকালে ডাকাত দলের ৪ সদস্য আটক Logo গাইবান্ধায় মশার কয়েলের আগুনেঃ গোয়াল ঘরের গরুসহ ভষ্মিভূত। Logo কাহারোলে নিখোঁজ যুবককে উদ্ধারে নেমেঃ ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরির মৃত্যু Logo গাইবান্ধায় এক কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। Logo চিরিরবন্দরে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় Logo জয়পুরহাটে ডাকাতি সংঘটনের ৭ ঘন্টার মধ্যে মালামাল ও দেশীয় অস্ত্রসহ ৩ জন আটক। Logo নীলফামারী থেকে হারানো শিশুকে উদ্ধার করেঃ মা-বাবা কাছে ফিরিয়ে দিলো রাশাস। Logo বালুবোঝাই ট্রলারের সঙ্গে যাত্রীবোঝাই সংঘর্ষে ট্রলার নিহত ২১;আহত ০৬। Logo চিরিরবন্দরে মা-ছেলেকে গ্রেপ্তারের ঘটনায়ঃ আসামি সিআইডির এএসপি সারোয়ার সহ জামিন নামঞ্জুর।

বাবার আমড়া বিক্রির টাকায় অসহায়ের মাঝে ছাতা বিতরণ

জেএসটিভিঃ / ১২৬ বার পঠিত
সময় : বুধবার, ৪ আগস্ট, ২০২১, ৯:৫৬ অপরাহ্ণ

স্টাফ রিপোর্টার যশোর:

গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টির মধ্যে ভেজা অসহায় মানুষের মাঝে ৫০টি উন্নতমানের ছাতা কিনে বিতরণ করেন জেরিন বাবার আমড়া বিক্রির টাকায়। তিনি যশোরের মণিরামপুর পৌরশহরে গিয়ে দেখেন এক সত্তোর্ধ বৃদ্ধ ভিজে ভ্যান চালাচ্ছেন ও অপর আরেক জন ভিজে ঝাড়-মুড়ি বিক্রি করছেন।
গত কয়েকদিনের টানা বর্ষায় পেটের তাগিদে এরা ঘর থেকে বের হয়েছেন। সারাদিন বৃষ্টিতে ভেজা কাপড় আর শরীর একাকার হয়ে এক মানব মূর্তী হচ্ছিল তাদের। দেখে মনটা খারাপ হয় জেরিনের। অভিভাবকের সাথে কথা না বলেই বাবার আমড়া বিক্রি করা টাকা দিয়েই কিনে আনলেন ৫০ টি উন্নতমানের ছাতা। আগে দিলেন ঝাড়-মুড়ি বিক্রেতা ও ভ্যান চালককে। এরপর দিনভর বর্ষায় অসহায়দের ছাতা কিনে দেওয়ার ইচ্ছার কথা জানালেন জেরিন।
প্রকৃত নাম সানজিদা জেরিন সায়ীদা। তিনি যশোরের মণিরামপুর উপজেলার মাঝিয়ালী গ্রামের নজরুল ইসলামের মেয়ে। বাবা পেশায় সহকারি তহশীলদার। জেরিন ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগের পঞ্চম সেমিষ্টারের ছাত্রী। শুধু ছাতা দিয়ে অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছেন তা নয়। গত বছর করোনার প্রাদূর্ভাব দেখা দিলে জেরিন মাটির ব্যাংকে জমানো টাকা দিয়ে খাদ্য সামগ্রী কিনে ভ্যান ভাড়া করে অসহায়দের ঘরে নিজেই পৌছে দিয়েছেন। এছাড়া প্রাকৃতিক যে কোন দুর্যোগে নিজের সাধ্যমত করে অসহায়দের পাশে সহযোগিতার হাত বাড়ান জেরিন। চাঁদপুর গ্রামের মরিয়ম খাতুন বলেন, ‘জেরিন মা লকডাউনের সময় স্বামীর কাজ না থাহায় কষ্টের সময় চাল তরিতরকারি দিল’। শুধু ময়িরম নয়, খেদাপাড়া গ্রামের রুপালী খাতুন, শামছুন্নাহার, কুলছুম বেগম, জুড়ানপুর গ্রামের বিজন দাস, তাহেরপুরের তাসলিমা, রুপবানসহ একাধিক নারী-পুরুষ জেরিনের প্রশংসা করছিলেন।
জেরিন বলেন, শুধু নিজেরা ভাল থাকার মধ্যে সার্থকতা নেই। সবাইকে নিয়ে ভাল থাকার মজাই আলাদ। নিজের জমানো কিংবা বাবার কাছ থেকে নেয়া টাকায় কেনা খাদ্য সামগ্রিসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি নিয়ে অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করি। ভবিষ্যতেও এ ধরনের কর্মকান্ডে নিজেকে নিয়োজিত রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন জেরিন।

সংবাদটি শেয়ার করুন :
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD